মেনু নির্বাচন করুন
পাতা

সিটিজেন চার্টার

১।প্রশাসনিকহিসাব সংক্রান্ত কারযাবলী।

২।ইপিআই কারজক্রম ঃকিশোরগনজ সদর উপজেলার ১১ টি ইউনিয়নের ২৬৪ টি কেন্দ্রে ইপিআই কারযক্রম চালু আছে ।

৩। ডায়রিয়া নিয়ন্ত্রনঃ ১১ টি ইউনিয়নের প্রতেকইউনিয়নের স্বাস্থ্যকমীদের মাধ্যমে ডায়রিয়া রোগী অনুসন্ধান চিকিৎসা ও প্রতিরধের ব্যাবস্থা গ্রহন করা হয়।

৪। যক্ষা ও কুষ্ঠ নিয়ন্ত্রন ঃপ্রতেকইউনিয়নে স্বাস্থ্যকমীদের মাধ্যমে যক্ষা ও কুষ্ঠ রোগীর অনুসন্ধান চিকিৎসা ও প্রতিরধের ব্যাবস্থা গ্রহন করা হয়।

৫। ম্যালেরিয়া ফাইলেরিয়া কালাজ্বর রোগীর অনুসন্ধান চিকিৎসা ও প্রতিরধের ব্যাবস্থা গ্রহন করা হয়।

৬। এআরআই রোগীর অনুসন্ধান চিকিৎসা ও প্রতিরধের ব্যাবস্থা গ্রহন করা হয়।

৭। আসেনিকোসিস রোগীর অনুসন্ধান ওচিকিৎসার ব্যাবস্থা  গ্রহন করা হয়। বিভিন্ন টিউব ওয়েলের পানিতে আসেনিক পরীক্ষা করা হয়।

৮। সদর উপজেলায় ১০ টি এফডব্লিউসিতে আইএমসিআই কারজক্রম চালু আছে। এভিয়ান ইনফ্লোয়েঞ্জা সোয়াইন ফ্লু এর ব্যাপারে সচেতনতা স‍ৃষ্টি ও টিকাদান কমসূচী চালু আছে।

৯। কিশোরগনজ সদর উপজেলায় চালুকৃত ২৮ টি কমিউনিটি ক্লিনিকের মাধ্যমে সাধারন রোগের চিকিৎসা প্রদান ও ঔষধ সরবরাহ করা হয় ।

১০।বিভিন্ন দূযোগ ও জরুরী অবস্থা মোকাবেলার জন্য প্রতি ইউনিয়েন ১ টি করে মেডিকেল টিম ও ৫ টি রিজাভ মেডিকেল টিম করমরত আছে।

১১। সিএসবিএ কতৃক প্রতি ইউনিয়নে গভবতী মহিলাদের এএনসি  পিএনসি  ও নিরাপদ প্রসব কাযক্রম সস্পাদন করা হয়।

১২।স্বাস্থ্য কমীদের মাধ্যমেকমিউনিটি ক্লিনিক ও বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে স্বাস্থ্য শিক্ষা কারযক্রম পরচালত হয়।

১৩। এইডস রোগের প্রাদুভাব সম্বন্ধে জনগনের মাঝে সচেতনতা সৃষ্টি করা হয়।

১৪। ভেজাল খাদ্য প্রতিরোধের ব্যবস্থা গ্রহন করা হয়।

১৫। অত্র উপজেলার সকল ইউনিয়নের স্যানিটেশন কারযক্রম দেখাশুনা  করা হয়।

১৬। বাজারে স্বাস্থ শিক্ষা কারযক্রম পরিচালনা করা হয়।

১৭। অত্র উপজেলার সকল ইউনিয়নের বিদ্যালয় সমূহে স্বাস্থ্য কমীদের দ্বারা ছাত্র ছাত্রীদেরকে কৃমি নাশক টেবলেট খাওয়ানো হয়।

          বিঃ দ্রঃ সময়ে সময়ে সরকার কতৃক জারী হওয়া করযক্রম পরিচালিত হইয়া থাকে।

ছবি


সংযুক্তি



Share with :

Facebook Twitter